এক অভিনব হ্যাকার “অ্যাস্ট্রা”-র কাহিনী

Pavel&Bannah

30 March, 2021 | 8 : 06 pm

এক অভিনব হ্যাকার “অ্যাস্ট্রা”-র কাহিনী

 

সময় টা তখন ২৫ শে জানুয়ারি ২০০৮। গ্রিস পুলিশ আটক করে ৫৮ বছর বয়সি এক বিপজ্জনক হ্যাকারকে। যার ছদ্মনাম ছিল “অ্যাস্ট্রা”। সংস্কৃত ভাষায় যার অর্থ অস্ত্র। এই ছদ্মনামের আড়ালে হ্যাকিংকে ব্যবহার করেছিল সে তার অস্ত্র হিসেবে। অবাক করার বিষয় হলো এই “অ্যাস্ট্রা”-র আসল পরিচয় কখোনোই শনাক্ত করা যায়নি। গ্রেপ্তারের পর সে নিজেকে একজন গণিতবিদ এবং ‘অ্যাস্ট্রা’ বলে পরিচয় দিয়েছিল। ‘অ্যাস্ট্রা’-র বিপজ্জনক হয়ে উঠার পিছনে কারণটাও ছিল খুবই মারাত্মক।

 

অ্যাস্ট্রা আন্তর্জাতিক ফরাসি বিমান সংস্থা ‘Dassault’ এর কম্পিউটারগুলিতে অনুপ্রবেশ করেছিল এবং ৫ বছরের বেশি সময় ধরে অস্ত্র প্রযুক্তির ডেটা চুরি করেছিল। ‘Dassault’ হলো মিলিটারি জেট বিমান প্রস্তুতকারি একটি সংস্থা। ‘অ্যাস্ট্রা’ যে তথ্য গুলো চুরি করেছিল সেগুলোর মধ্যে জেট এবং অন্যান্য সামরিক-গ্রেড বিমানগুলো সম্পর্কে গোপনীয় তথ্য অন্তর্ভুক্ত ছিল। গ্রীক কর্মকর্তাদের ভাষ্যমতে, সে এই গোপনীয় তথ্যগুলো ইন্টারনেটের মাধ্যমে দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রাজিল, জার্মানি, ইতালি এবং ফ্রান্সের প্রায় ২৫০ জনের কাছে বিক্রি করেছিল। মধ্যপ্রাচ্যে বসবাসকারী বিভিন্ন লোকও তার ক্রেতার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ছিল। ‘অ্যাস্ট্রা’-র এমন হ্যাকিং এর দাপটে ‘Dassault’ কে গুনতে হয়েছিল ৩৬০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের লোকসান।

 

 

ডেটাগুলি “আস্ট্রা” দ্বারা প্রতি ব্যাচে ১০০০ ডলারে বিক্রি করা হয়েছিল। ৩০ শে জানুয়ারী, ২০০৮ তারিখে, ‘Guardium’ এর মার্কেটিং ভাইস প্রেসিডেন্ট ফিল ন্যারি ‘SCMegazine’ কে জানিয়েছিলেন যে, প্রকাশিত সমস্ত তথ্যের ভিত্তিতে ‘অ্যাস্ট্রা’ Dassault এর মধ্যে থেকে এই কাজ করেছিলেন কিনা তা এখনো স্পষ্ট নয়। তিনি আরো ব্যাখ্যা করেছিলেন যে, ‘Dassault’ এর মতো সংস্থাগুলিকে তাদের ফায়ারওয়ালে একটি হোল খুলতে হবে যাতে তাদের বাহ্যিক অংশীদাররা ডেটা ডিজাইনের জন্য সিস্টেম অ্যাক্সেস করতে পারে এবং এই পদ্ধতিটি হ্যাকারের তথ্য অ্যাক্সেসের জন্যও ব্যবহারযোগ্য। উল্লেখ্য, ‘Guardium’ হলো একটি ডাটাবেজ সুরক্ষা সংস্থা যেটি কোনো তথ্য কেন্দ্র থেকে তথ্য ফাঁস রোধ এবং প্রতিষ্ঠানের ডেটার অখণ্ডতা নিশ্চিত করার জন্য সর্বাধিক ব্যবহৃত সমাধান। আবার ডেটাবেজ সুরক্ষা সংস্থা ‘Vaau’ এর মার্কেটিং ভাইস প্রেসিডেন্ট, পল ভেলুসামি এই ইস্যুতে ফিল ন্যারির সাথে ভিন্নমত পোষণ করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন ‘অ্যাস্ট্রা’ নিঃসন্দেহে ‘Dassault’ এর অভ্যন্তরে থেকে হ্যাকিং চালিয়ে গিয়েছিল। তিনি জানিয়েছিলেন যে, ‘অ্যাস্ট্রা’ ‘Dassault’ এর সাথে অস্থায়ী সময়ের জন্য একটি প্রকল্পে কাজ করার সুযোগ পেয়েছিল এবং নির্দিষ্ট ডাটা অ্যাক্সেস করার অধিকার তাকে দেওয়া হয়েছিল। প্রকল্পটি শেষ হওয়ার পরে অনুমতিটি ছিল কখনই বাতিল হয়নি। সেই সুযোগেরই সৎ ব্যবহার করে ‘অ্যাস্ট্রা’ । ২০০৮ সালের জানুয়ারিতে আটকের পর ‘আস্ট্রা’ কে ছয় বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।

Source: http://www.spamfighter.com/News-9807-Aviation-Hacker-under-Arrest-in-Greece.html

 

আমাদের সকল সাইটের লিংকঃ


274 Views


4.3 6 votes
Article Rating
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
Show Buttons
Hide Buttons
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x