Jeanson James Ancheta-convicted bot-herder

Muhaimin & Farhan

02 April, 2021 | 11 : 21 pm

জিনসন জেমস আনচেটার

সালটা তখন ১৯৮৫। আমেরিকার অঙ্গরাজ্য ক্যালিফোর্নিয়ার কোনো এক দম্পতির কোল আলোকিত করে ছেলেটির জন্ম। কিন্তু কে জানত এই ছেলেটি হবে হ্যাকিং ইতিহাসে অন্যতম খ্যাপাটে চরিত্র, যে কিনা নিয়ন্ত্রণ করত অর্ধ মিলিয়ন কম্পিউটার। হ্যাঁ! আর কারো কথা বলছি না , বলছি জিনসন জেমস আনচেটার কথা। ডাকনাম ছিল জেমস। ইতিহাসে আনচেটা/আঁচেটা নামেই পরিচিত।

জেমসের বেড়ে ওঠা ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের ডৌনী শহরে। ২০০১ সাল পর্যন্ত তিনি লেখাপড়া করেন ডৌনী উচ্চ বিদ্যালয়ে। ইন্ট্রোভার্ট এই ছেলেটি তার আচরণগত সমস্যা জন্য যুক্ত হন বিদ্যালয়ের লেখাপড়ার বিকল্প একটি প্রোগ্রামে। এই ছোট বয়সে তার জন্য ছিল অর্থের প্রতি নেশা। ঘন্টার পর ঘন্টা ধরে কাজ করতেন ইন্টারনেট ক্যাফে তে। অবশ্য তার স্বপ্ন ছিল আমেরিকান মিলিটারি ফোর্সে নিয়োগ পাওয়ার। ইন্টানেট ক্যাফে তে কাজ করার সময় জেমস পরিচিত হয় বোটনেট এর সঙ্গে পরিচয়। এরপর কাজ শুরু করেন আরেক্সবট নিয়ে! শুরু হয় তার জীবনের আরেকটি অধ্যায়। তার সৃষ্টি ম্যালওয়্যার গুলো অনুমতি ছাড়াই কম্পিউটারে প্রবেশ করতে পারত এবং সফটওয়্যারটি ইন্সটল করতে পারত মুল প্রোগ্রামের অনুমতি ছাড়াই। একইসাথে এর ফায়ারওয়াল এতটাই সুরক্ষিত ছিল যে কম্পিউটার সফটওয়্যারটি কে ডিটেক্ট করতে পারত না। ম্যালওয়্যারটি ক্রমশ ছড়িয়ে পড়তে থাকে এবং জেমস একটির পর একটি কম্পিউটারের নিয়ন্ত্রণ নিতে থাকেন। একটা সময়ে গিয়ে তিনি মুনাফা লাভের চিন্তা করেন এবং তারে জম্বি কম্পিউটারগুলোকে নিজের স্বার্থে ব্যবহার শুরু করেন। আঁচেটা তার বোটনেট তৈরি করেছিলেন এবং আরএক্সবট ট্রজেন হর্স এর সাহায্যে কম্পিউটার গুলোকে সংক্রমণ ঘটান। এভাবে তিনি অর্ধ মিলিয়ন কম্পিউটারকে নিজের আয়ত্বে নিয়ে নেন। এসব কম্পিউটারের মধ্যে ছিল চীন হৃদে অবস্থিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেভাল ওয়ারফেয়ার সেন্টার এবং ডিফেন্স ইনফরমেশন সিস্টেমের এজেন্সির অসংখ্য কম্পিউটার। পরবর্তীতে তিনি এসব জম্বি কম্পিউটার ব্যবহার দিয়ে শুরু করেন স্পামিং। তিনি এক লক্ষ ৭ হাজারেরও বেশি সংক্রামিত কম্পিউটারে এডোয়ার ডাউনলোড করে বিজ্ঞাপনী অধিবেশন প্রচার করতেন এবং বিজ্ঞাপনী সংস্থাগুলো তার প্রতিটি বিজ্ঞাপনের জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ মুনাফা ব্যাংক একাউন্টে প্রেরণ করত। পরবর্তীতে ডাচ কর্তৃপক্ষ প্রথম আছে তার বিরুদ্ধে কেস ফাইল দাখিল করে, এর কিছুদিনের মধ্যে আরও ১৪ টি কেস দাখিল হয় এবং এক পর্যায়ে এফবিআই এর তদন্তভার নেয়। জেমসের যেসব গ্রাহক ছিল তাদের ভিতর একজন পরবর্তীকালে এফবিআই এ যুক্ত হয়, এবং এর কিছুদিনের মধ্যেই তিনি গ্রেফতার হন। আদালতের শুনানির সময়, আঁচেটা স্বীকার করেছেন যে দুর্বল কম্পিউটারগুলি স্ক্যান করতে এবং সেগুলি শোষণের জন্য তিনি ইন্টারনেটের মাধ্যমে দূষিত কোড প্রেরণ করতে নিয়ন্ত্রিত কম্পিউটার সার্ভারগুলি ব্যবহার করেছিলেন। আঁচেটা হাজার হাজার কম্পিউটারকে ইন্টারনেট রেলে চ্যাটের একটি চ্যানেলে পরিচালিত করেছিল যা তিনি নিয়ন্ত্রণ করেছিলেন, একই রকম সংক্রমণের ঝুঁকিপূর্ণ কম্পিউটারগুলির জন্য স্ক্যান করতে, এবং আরও অননুমোদিত অ্যাক্সেসের জন্য “জম্বিগুলি” ঝুঁকির মধ্যে থেকে যায়। আচেটা আরও স্বীকার করেছেন যে, ৩০ টিরও বেশি পৃথক লেনদেনের ক্ষেত্রে, তিনি অন্যান্য কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের কাছে বটনেটগুলিতে অ্যাক্সেস বিক্রয় অস্বীকারের পরিষেবা (ডিডিওএস) আক্রমণ চালানোর উদ্দেশ্যে এবং অযাচিত বাণিজ্যিক ইমেল প্রেরণের মাধ্যমে প্রায় ৩০০০ ডলার আয় করেছেন, যাকে সাধারণত স্প্যাম বলা হয়।

আরো পড়ুন – এক অভিনব হ্যাকার “অ্যাস্ট্রা”-র কাহিনী  

আঁচেটা বিশেষ করে যারা Dotos আক্রমণ বা প্রক্সি স্প্যামিং পরিচালনার বিষয়ে আগ্রহী তার বোটনেটদের প্রকৃতি এবং ব্যাপ্তিকে লিজ দিয়েছিলেন তাদের সাথে বিশেষভাবে আলোচনা করার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। কারাগারের মেয়াদ অনুসরণ করে, আঁচেটা মুক্তির পেতে জন্য পাঁচ বছর সময় পাবেন।জেলমুক্তির পর কিছু সময়ের মধ্যে, কম্পিউটার এবং ইন্টারনেটে তার অ্যাক্সেস সীমাবদ্ধ থাকবে এবং তাকে চীন হ্রদে অবস্থিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেভাল এয়ার ওয়ারফেয়ার সেন্টার এবং ডিফেন্স ইনফরমেশন সিস্টেমস এজেন্সির অস্ত্রশস্ত্র বিভাগের প্রতিশোধ হিসাবে প্রায় ১৫,০০০ ডলার প্রদান করতে হবে, যার জাতীয় প্রতিরক্ষা নেটওয়ার্কগুলি আচেটার দূষিত কোড দ্বারা ইচ্ছাকৃতভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল। আঁচেতার অবৈধ ক্রিয়াকলাপের আয় $ ৬০,০০০ এরও বেশি নগদ, একটি বিএমডাব্লু গাড়ি ও কম্পিউটার সরঞ্জাম – সরকার তা বাজেয়াপ্ত করে। সাজা শুনানির সমাপ্তির সময় আসামীকে সম্বোধন করে বিচারক ক্লাউসনার বলেছিলেন: “আপনার নিকৃষ্টতম শত্রু আপনার নিজের বৌদ্ধিক অহংকার যে কোনভাবেই বিশ্ব আপনাকে এই বিষয়ে স্পর্শ করতে পারে না।” এই মামলাটি ফেডারেল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন-এর লস অ্যাঞ্জেলেস ফিল্ড অফিস দ্বারা তদন্ত করা হয়েছিল, যেটি নেভাল ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেট সার্ভিসের দক্ষিণ-পশ্চিম ফিল্ড অফিস এবং ডিফেন্স ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেট সার্ভিসের ওয়েস্টার্ন ফিল্ড অফিসের সহায়তা পেয়েছিল।

Find us more here:

Website: https://www.canbd.org

LinkedIn: https://www.linkedin.com/company/canbdorg/

YouTube: https://www.youtube.com/channel/UC5px2nUYgxiletdr9_6771A

Twitter id: https://twitter.com/canbdorg

Instagram: https://www.instagram.com/canbdorg/

Facebook page: https://www.facebook.com/canbd.org

Facebook Group: https://www.facebook.com/groups/canbd.org/


316 Views


5 2 votes
Article Rating
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
Show Buttons
Hide Buttons
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x