বিশ্বে ৩১ লাখ পদ খালি সাইবার নিরাপত্তা খাতে

Surovi&Sonchoy

19 April, 2021 | 12 : 27 pm

বিশ্বে ৩১ লাখ পদ খালি সাইবার নিরাপত্তা খাতে

 

এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সাইবার নিরাপত্তা এখন বিশাল বড় হুমকির সম্মুখীন কারণ সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে প্রকাশ পেয়েছে সাইবার নিরাপত্তা খাতে বিশ্বে ৩১ লাখের ও বেশি পদ খালি আছে।

 

আইএএনএস  এর তথ্যসূত্রে জানা যায়, যে অধকাংশই এশিয়া- প্রশান্ত মহসাগরীয় অঞ্চলে। পেশাদার কর্মসংস্থান সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান মাইকেল পেইজ ইন্ডিয়ার প্রতিবেদন অনুযায়ী করণা মহামারীর কারণে এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সাইবারক্রাইমের মাত্র ৬০০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

 

‘দ্য হিউম্যানস অব সাইবার সিকিউরিটি’ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত এশিয়ায় প্রায় দুই কোটির কাছাকাছি র‍্যানসময়ার এবং ফিশিং অ্যাটাক করা হয়েছে। যার বেশকিছু করোনা বিষয়ক ছিল। প্রগতিশীল ব্যবসা ক্ষেত্রে সাইবার সিকিউরিটি একটি গুরুতপূর্ণ বিষয় হলেও সাইবার সিকিউরিটি এর জন্য এসব ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেই বললেই চলে যায় কারণে দেখা যায় এসব ক্ষেত্রেই সাইবার ক্রাইমের প্রকোপ বেশি। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে প্রয়োজন দক্ষ সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক টেকনিশিয়ান যারা নতুন নতুন সাইবার ক্রাইম পূর্বেই চিন্হিত করতে পারবে এবং কোনো ক্ষতি হওয়ার আগেই তা প্রতিহত করতে পারবে।এসব খাতে প্রয়োজনীয় শ্রমশক্তির অভাব অর্থাৎ এই সাইবার নিরাপত্তা খাতে এত সংখ্যক শূন্য আসন একটি উদ্বেগজনক বিষয়।

 

প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, বর্তমানে সাইবার সিকিউরিটি খাতে, অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট সিকিউরিটি, ক্লাউড সিকিউরিটি রিস্ক ম্যানেজমেন্ট, থ্রেট ইন্টেলিজেন্স, ডাটা প্রাইভেসি ও সিকিউরিটি বিষয়ে ৪৩ শতাংশ ঘাটতি রয়েছে। মাইকেল পেজ ইন্ডিয়ার পরিচালক ভার্সা বারোয়াহ বলেন, সিকিউরিটি ইঞ্জিনিয়ার, সাইবার সিকিউরিটি অ্যানালিস্ট এবং সাইবার সিকিউরিটি ইঞ্জিনিয়ারদের চাহিদা বর্তমানে বেড়েই চলছে।

 

তিনি আরো বলেন, ২০২৫ সালের মধ্যে ভারতে সাইবার সিকিউরিটি খাতে ১৫ লাখের বেশি পদ খালি থাকবে।২০১৯ সালে এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সাইবার সিকিউরিটির বাজার মূল্য ছিল ৩ হাজার ৪৫ কোটি ডলার। ধারণা মতে, ২০২০ থেকে ২৫ সাল পর্যন্ত এ খাতে সম্মিলিত বার্ষিক প্রবৃদ্ধি হার থাকবে ১৮ দশমিক ৩ শতাংশ।

 

 

আরও পড়ুনঃ https://www.canbd.org/meme-haven-yahoo…ing-to-shut-down/

২০২০ সালে বিশেষ কিছু সাইবার বিষয়ক হুমকি:

 

ফিশিং ই-মেইলের পরিবর্তন:  ফিশিং ই-মেইল সম্পর্কে বর্তমানে কম-বেশি সবাই পরিচিত। তাই হ্যাকাররা আগের পদ্ধতিতে ফিশিং ই-মেইল দিয়ে তথ্য হাতিয়ে নেয়ার সুযোগ না পাওয়ায় তারা মেশিন লার্নিংয়ের মাধ্যমে ফিশিং মেসেজ ছড়িয়ে দেয়া শুরু করে।

সাইবার ফিজিক্যাল অ্যাটাক: অবকাঠামোগত ক্ষেত্রে আধুনিকীকরণের জন্য আমরা কম্পিউটার ব্যবহার করলেও এর সঙ্গে ভয়াবহ ক্ষতির আশঙ্কাও থাকে। যেমন- যেসব দেশের ওয়াটার সাপ্লাই, ইলেকট্রিক গ্রিড, পরিবহন ব্যবস্থা স্বয়ংক্রিয়, সেসব ক্ষেত্রেও হ্যাকিংয়ের আশঙ্কা রয়েছে। যার ফলে সাধারণ মানুষ প্রত্যক্ষভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে।

স্মার্ট মেডিকেল ডিভাইস ও ইলেকট্রনিক মেডিকেল রেকর্ডস: স্বাস্থ্যসেবায় প্রযুক্তির ব্যবহার দিন দিন বাড়ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে ব্যক্তিগত তথ্য চুরির হার। কারনেগি মেলন ইউনিভার্সিটির সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটের তথ্যানুযায়ী, একটি ক্লিনিক বা হাসপাতালে যত বেশি ডিভাইস সংযুক্ত থাকে, তত তথ্য চুরির আশঙ্কা থাকে। সেই সঙ্গে একজন রোগীর শরীরের সঙ্গে সংযুক্ত কোনো ডিভাইসকে দূর থেকে নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে দুর্ঘটনা ঘটানো সম্ভব।

Find us more here:

Website:

https://www.canbd.org

LinkedIn:

https://www.linkedin.com/company/canbdorg/

YouTube:

https://www.youtube.com/channel/UC5px2nUYgxiletdr9_6771A

Twitter id:

https://twitter.com/canbdorg

Instagram:

https://www.instagram.com/canbdorg/

Facebook page:

https://www.facebook.com/canbd.org

Facebook Group:

https://www.facebook.com/groups/canbd.org/


183 Views


4 3 votes
Article Rating
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
Show Buttons
Hide Buttons
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x