‘১বিলিয়ন’ মানুষের তথ্য ফাঁস ইয়াহু হ্যাকের কারনে!

Soad&Sonchoy

30 May, 2021 | 7 : 00 pm

সময়টা ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৬। হঠাৎ পত্রিকায় নিউজ আসল বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সোশাল মিডিয়া প্লাটফর্ম  ইয়াহুর ১০০ কোটি ব্যবহারকারীর মেইল একাউন্ট হ্যাক করে তাদের তথ্য ফাঁস করা হয়। বিষয়টি প্রথমে ইয়াহু অস্বীকার করলেও পরবর্তীতে স্বীকার করে নেয় এই তথ্য চুরির ঘটনা।

ইয়াহু মূলত একটি ওয়েব সার্ভিস প্রোভাইডার যা মেইল,সার্চ ইঞ্জিন সহ ইন্টারনেটে বিভিন্ন সার্ভিস প্রোভাইড করে। এটি প্রতিষ্টা করে জেরি ইয়াং এবং ডেভিড ফিলো । এটি মূলত ১৯৯৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হলেও কার্যক্রম শুরু হয় ১৯৯৫ সালে। পরে ক্রমাগত লোকসানের জন্য ২০১৬ সালের জুলাই মাসে মার্কিন টেলিকম প্রতিষ্ঠান ভেরাইজন প্রায় ৫০০ মিলিয়ন ডলারে প্রতিষ্ঠানটি কিনে নেওয়ার চুক্তি হয় ।কিন্তু এই ঘটনার পর ভেরাইজনের সাথে ডিলটি ৩৫০ মিলিয়ন ডলারে গিয়ে ঠেকে এবং জুলাই ২০১৭ সালে ঔ দামে চুক্তিটি সম্পন্ন হয় ।

‘One billion’ affected by Yahoo hack – BBC News

এই তথ্য চুরির ঘটনা ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৬ সালে খবরের সংবাদ হলেও ওই বছরের জুনে প্রায় ২০০ মিলিয়ন তথ্য ডরনেট বাজারে বিক্রির জন্য রাখা হইছিল এবং এর ক্রেতার মাধ্যমেই পরবর্তীতে তথ্য চুরির ঘটনা আত্মপ্রকাশ ঘটে। তবে এই তথ্য চুরির ঘটনা আরও আগে ঘটেছিল, ইয়াহুর বিবৃতি অনুযায়ী ২০১৩ সালে। প্রাথমিকভাবে বিশ্বাস করা হয়েছিল যে 1 বিলিয়নরও বেশি ব্যবহারকারী অ্যাকাউন্টগুলি হ্যাক করেছে । পরে অক্টোবরে 2017 এ নিশ্চিত হয়ে গেছিল যে এর 3 বিলিয়ন ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টে হ্যাক হয়েছে।

বিশ্বে ৩১ লাখ পদ খালি সাইবার নিরাপত্তা খাতে

কিন্তু ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে ৫০ কোটি ব্যবহারকারীর তথ্য চুরির ঘটনা ফাঁস হয়েছিল সেটার সাথে এই ঘটনার কোনো সংযোগ নেই বলে জানায়। হ্যাকাররা ব্যবহারকারীর যা যা চুরি করেছে বলে জানায়-

  • নাম,
  • ইমেইল এড্রেস,
  • জন্ম তারিখ,
  • টেলিফোন নাম্বার ,
  • এনক্রিপ্ট করা বা এনক্রিপ্ট করা সুরক্ষা প্রশ্ন – উত্তরগুলি
  • এবং পাসওয়ার্ড

আর পাসওয়ার্ড হ্যাকের পিছনে পুরানো এমডি 5 অ্যালগরিদম ব্যবহারকে দায়ী করা হয় যা দ্রুত ভেঙে যেতে পারে। কিন্তু ব্যবহারকারীর পেমেন্ট কার্ড বা ব্যাংক একাউন্টের তথ্য চুরি যায় নি বলে নিশ্চিত করে।

বিনামুল্যের অ্যাপ দিয়ে লোকেশন ট্র্যাকিং কতটুকু নির্ভরযোগ্য?

ইয়াহু কর্তৃপক্ষ এই হ্যাকিংটি কোনো রাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতায় ঘটেছে বলে দাবি করে কিন্তু কোনো দেশের নাম উল্লেখ করে নি। পরবর্তীতে কয়েকটি দেশের বিভিন্ন সংস্থার সম্মিলিত তদন্তে উঠে আসে এই ঘটনার সাথে দুই রাশিয়ান গুপ্তচর দিমিত্রি ডোকুচায়েভ এবং ইগোন সাশসিন জড়িত জড়িত ছিল। তারা হ্যাকিং এর জন্য দুই জন উচ্চ দক্ষতাসম্পন্ন হ্যাকার ভাড়া করেছিল। তবে রাশিয়া এটি তাদের পৃষ্ঠপোষকতার কথা অস্বীকার করে। আর সেসময় এটি ইতিহাসের সবচেয়ে বড় সাইবার হামলার ঘটনা বলে আখ্যায়িত করা হয়।

Find us more here:

Website:

https://www.canbd.org

LinkedIn:

https://www.linkedin.com/company/canbdorg/

YouTube:

https://www.youtube.com/channel/UC5px2nUYgxiletdr9_6771A

Twitter id:

Instagram:

https://www.instagram.com/canbdorg/

Facebook page:

https://www.facebook.com/canbd.org

Facebook Group:

https://www.facebook.com/groups/canbd.org/


58 Views


5 1 vote
Article Rating
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
Show Buttons
Hide Buttons
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x